‘ও কলকাতায় সম্পাদকের কোন কলাম নেই – থুড়ি, ছিল না। সেই যখন প্রথম ওয়েবসাইট-টি শুরু হয়েছিল, তখন গোড়ার কথা হিসেবে যে কথাগুলো না বললেই নয় – শুধু সেটুকুই ছিল। তারপর অনেক জল বয়ে গেছে। যারা আমাদের প্রথম থেকে দেখে আসছেন, তারা জানেন যে সাইটটি আমূল ডিজাইন বদল করেছে – এবং এখনও রদবদল হচ্ছে। প্রথমে সেই প্রসঙ্গেই জানিয়ে রাখি যে এই পরিবর্তন আমাদের পাঠকদের মতামতের ভিত্তিতেই করা হয়েছে। যেহেতু ‘ও কলকাতা’র কোন সংখ্যা নেই – তাই সম্পাদকীয় সেভাবে প্রয়োজন পড়েনি। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে আমাদের কথা পাঠকদের জানানর জন্য এই বিভাগটির অত্যন্ত প্রয়োজন আছে – যেখানে অন্তুতঃ আমরা নিজেদের তরফ থেকে সাইট সংক্রান্ত কিছু কথা আপনাদের জানাতে পারি।

আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের অন্ত নেই – যার বড় অংশ হল নতুন লেখার অভাব। সত্যি কথা বলতে কি এই অভিযোগ স্বীকার করে নেওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই। ভালো লেখার অভাব আছেই – আর লেখা পছন্দ না হয়ে তা প্রকাশ করা হয় নি। এই কারণে পাতা ভরিয়ে দেওয়ার মত লেখা কোনদিনই ভিড় করেনি আমাদের পত্রিকায় – বরং চলেছে শম্বুক গতিতে। এ দুর্দিন আমাদের নয় – ইন্টারনেটে বাংলা ভাষা নিয়ে উৎসাহী মানুষের অভাব। সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন সাইটে বাংলা নিয়ে লেখেন, চর্চা করেন অনেকেই – কিন্তু ওয়েব মাধ্যমে সেই কাজটুকু এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মধ্যে প্রবল অনীহা সকলেরই। আপনাদের কাছ থেকে ভালো লেখে পেলে আমরাও ওয়েব ম্যাগাজিন হিসেবে আরও সমৃদ্ধ হব – এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই। যাইহোক, এ পুরনো কাসুন্দি – এই নিয়ে ঘেঁটে কোন লাভ নেই। নতুন কথা হচ্ছে এই যে আমাদের একটি নতুন বিভাগ শুরু হতে চলেছে – তা হল, শুধুমাত্র কলকাতা নিয়ে। আশা করছি এই উদ্যোগটিও জনপ্রিয় হবে।

গত বছর একটি সেমিনারে আয়োজন করা হয়েছিল ‘সৃষ্টিসুখ’, ‘ইচ্ছামতী’ এবং ‘ও কলকাতা’ র তরফ থেকে। অনেকে হয়তো সেই সেমিনারে যোগ দিয়েছেন। শুনেছেন আমাদের কথা। এরপর ‘ও কলকাতা’-র তরফ থেকে আরও একটি উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে – তা হল একটি বাংলা ব্লগ ডাইরেক্টরি করার, যেখানে সমস্ত বাংলা ব্লগকে এক জায়গায় পাওয়া যাবে। এ ব্যাপারে অনেকেই আমাদের সাহায্য করেছেন তাদের লিঙ্ক পাঠিয়ে, ‘ও কলকাতা’র সঙ্গে লিঙ্ক এক্সচেঞ্জ করে – কিন্তু বলা বাহুল্য তা পরিমিত নয়। আরও অনেকেই বাংলা ব্লগ করেন – সকলকে এই ডাইরেক্টরিতে না পেলে এই উদ্যোগটিও অসমাপ্ত থেকে যাবে। তাই আপনাদের অনুরোধ করছি আরও একবার।

বাংলায় তৈরি হলেও অনেক ওয়েবসাইট মাঝপথে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে নানা কারণে। আবার একটা ভালো দিকও দেখা যাচ্ছে আজকাল অনেকেই ইউনিকোড বাংলা শিখে বাংলায় লিখছেন, কমেন্ট করছেন। বাংলায় খবরের কাগজগুলিও ইউনিকোডের দিকে এসেছে ধীরে ধীরে। শুধু বাংলা ভাষা কেন, সব ভাষার ভবিষ্যৎ কিন্তু ওয়েবেই। ‘ও কলকাতা’র পক্ষ থেকে এরকম কিছু নতুন উদ্যোগ হয়তো ভবিষ্যতেও নেওয়া হবে। আপনারা সকলে সঙ্গে থাকুন।

শুভেচ্ছা। পুজোর দিনগুলো কাটুক অনেক আনন্দে।

Latest posts by সম্পাদক (see all)